জনদর্পন... জনতার প্ল্যাটফর্ম
Reach out to us

  +91 - 7005571681



এই খবরের কোনো ভিডিও নেই |

রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডকে ঘিরে উত্তপ্ত হাপানিয়া

রাজ্য / Local

Sept. 22, 2022, 9:53 p.m.


নিজস্ব প্রতিনিধি 22 সেপ্টেম্বর। আগরতলা শহরতলী হাঁপানিয়ায় সি পি আই এম -এর পূর্ব ঘোষিত সভাকে ঘিরে উত্তপ্ত রাজনীতি। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে মোতায়েন করা হয়েছে পুলিশ এবং আধা সামরিক বাহিনী। বৃহস্পতিবার পূর্ব ঘোষণা অনুযায়ী গণতন্ত্র পুনরুদ্ধার এবং আইনের শাসন প্রতিষ্ঠার দাবিতে সিপিআইএম ডুকলী মহকুমা কমিটির উদ্যোগে আয়োজন করা হয় মিছিল এবং পথ সভার। কিন্তু এদিন সকালে আচমকা বিরোধী দলের এই কর্মসূচির অনুমতি বাতিল করে দেয় পুলিশ প্রশাসন। তাই পূর্ব ঘোষিত মিছিল বাদ দিয়ে এদিন সভা হয় ডুকলি মহকুমা অফিসের সামনে। বামেদের এই কর্মসূচিকে ঘিরে এদিন সকাল থেকেই এলাকার পরিস্থিতি ছিল থমথমে। পুলিশের পক্ষ থেকে কোন ধরনের অনুমতি দেওয়া হয় না সভা করার জন্য।তারপরও বিরোধী দলনেতা মানিক সরকারের উপস্থিতিতে নির্ধারিত সময় অনুযায়ী এদিন শুরু হয় কর্মসূচি। কিন্তু কর্মসূচি শুরু হওয়ার সাথে সাথে রাস্তার দুপাশে জমায়েত হতে শুরু করে কয়েক শতাধিক যুবক। এর মধ্যেই টানটান পরিস্থিতির মধ্যে দিয়ে চলতে থাকে বামেদের কর্মসূচি। পুলিশ, টি এস আর এবং আধা সামরিক বাহিনী সিপিআইএম-এর কর্মসূচিতে ব্যারিকেড দিয়ে নিরাপত্তা দিতে শুরু করে। সভা শেষ হওয়ার পর অধিকাংশ সিপিএম কর্মী সমর্থকদের পুলিশ বাসে করে নিরাপদে বাড়ি ফেরাতে সক্ষম হলেও কয়েকজন কর্মী সমর্থক দুর্বৃত্তদের মুখে পড়ে। দুর্বৃত্তরা তাদের ব্যাপক প্রহার করে বলে অভিযোগ। দুর্বৃত্তদের আক্রমণের হাত থেকে রেহাই পেল না সাধারণ নাগরিকরাও। ভেঙে গুঁড়িয়ে দেওয়া হয় বেশ কয়েকটি যানবাহন। এতে করে গোটা এলাকার পরিস্থিতি বেশ উত্তপ্ত হয়ে উঠে। শেষ পর্যন্ত এলাকায় বাড়ানো হয় নিরাপত্তা ব্যবস্থা। কিন্তু বর্তমানে পরিস্থিতি অনেকটাই থমথমে। এদিন সভায় বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার ডাবল ইঞ্জিনের সরকারের তীব্র সমালোচনা করে বলেন, মানুষ ব্যাপক সমস্যায় পড়ে আছে। সরকার প্রতিশ্রুতি পালন করছে না। সবচেয়ে বড় জ্বলন্ত সমস্যা হল কর্মসংস্থানের অভাব। ১০,৩২৩ -এর কোন স্থায়ী ব্যবস্থা হয়নি। মানুষের নিরাপত্তা হরণ করে নেওয়া হয়েছে। রাজ্যের টি এস আর ব্যাটেলিয়ান বহিঃ রাজ্যে পাঠিয়ে দেওয়া হচ্ছে। প্রতিদিন মানুষ আক্রান্ত হচ্ছে। কিন্তু শাসক দল আগের মতো এখন লোক জমায়েত করে সন্ত্রাস করতে পারছে না। মানুষ বুঝতে শুরু করেছে নিজের পায়ে নিজে কুড়াল মেরেছে। মানুষ এখন এই বিজেপি সরকারকে আর চাইছে না বলে জানান তিনি। আরো বলেন, যেভাবে উপনির্বাচন লোকসভা নির্বাচনে শাসকদল বিজেপি ভোট লুট করেছে, সেভাবে ২০২৩ -এর নির্বাচনে ভোট করতে পারবে বলে ভাবলে বিজেপি ভুল করবে। কারণ মানুষ তৈরি হয়ে আছে এ স্বৈরাচারী ও অগণতান্ত্রিক সরকারকে বিসর্জন দিতে। শ্রী সরকার আরো বলেন মানুষ যাতে বিজেপির প্ররোচনার ফাঁদে পা না দেয়। এ সরকারকে উৎখাত করার লক্ষ্য নিয়ে এগিয়ে যেতে হবে। কারণ বিজেপিকে পরাস্ত না করা গেলে মানুষের অস্তিত্ব বিপন্ন হয়ে যাবে বলে জানান তিনি। এদিনের এই সভা শেষ হবার পর কর্মীরা বাড়ি যাবার পথে জাতীয় সড়কের দুই পাশে কিছু দুর্বৃত্ত আক্রমণ চালায় আন্দোলন কর্মসূচিতে অংশগ্রহণকারীদের উপর। শুধু তাই নয় পথ চলতি সাধারণ মানুষের উপরও দুর্বৃত্তরা আক্রমণ করে বলে অভিযোগ। সিপিএমের বিভাগীয় অফিসে বেরিকেট তৈরি করে রাখে দুর্বৃত্তরা। ফলে অফিসের মধ্যেই দীর্ঘ সময় আটকে পড়েন বিরোধী দলনেতা সহ সিপিআইএম দলের স্থানীয় নেতৃত্ব। এই ঘটনায় পুলিশের ভূমিকার প্রশ্ন তুলে বিকেলে পুলিশের সদর কার্যালয়ে ঘেরাও করে সিপিআইএম দলের নেতাকর্মীরা। পরে মানিক দের নেতৃত্বে এক প্রতিনিধি দল পুলিশের উচ্চপদস্থ আধিকারিকের সাথে দেখা করে তাদের অভিযোগ দায়ের করেন।



Contact Us
Phone: +91-8794840801/7005571681
Email: janadarpannews@gmail.com

© Copyright, 2021-22 janadarpan.com. All Rights Reserved. Developed and Maintained by Chevichef Private Limited.

Images published in the Image Gallery are subjected to Copyright of the photographer under The Copyright Act, 1957 of the Republic of India. Any unauthorized use of any image is prohibited.