জনদর্পন... জনতার প্ল্যাটফর্ম
Reach out to us

  +91 - 7005571681



এই খবরের কোনো ভিডিও নেই |

বাম জামানায় মজলিস পুর ছিল খুন এবং সন্ত্রাসের আঁতুড়ঘর‌ : সুশান্ত

রাজ্য / Local

Dec. 21, 2021, 11:20 p.m.


ওয়েব ডেস্ক জনদর্পন : রাজনৈতিক দিশাহীনতা ও হতাশায় ভোগছেন বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার । রাজ্যে সি পি এমের জনভিত্তি তলানীতে এসে ঠেকায় পুরোপুরি হতাশায় গ্রাস করেছে বিরোধী দলনেতা মানিক সরকারকে । ক্ষমতা হারানোর পর থেকেই বার বার মিথ্যা ও অপপ্রচারকে ভিত্তি করে রাজনৈতিক জমি ফিরে না পেয়ে রাজ্যবাসীকে বি জে পি সরকার সম্পর্কে নানাভাবে বিভ্রান্ত করার চেষ্টা করছেন তিনি । বিরোধী দলনেতা হিসাবে তার পদমর্যাদা পর্যন্ত বজায় রাখতে পারছেনা মানিক সরকার । শেষ পর্যন্ত বি জে পি এবং রাজ্য সরকার সম্পর্কে সম্পূর্ণ ভিত্তিহীন ও মিথ্যাচারে নেমেছেন তিনি । এতে তাঁর এবং সি পি এমের কোন রাজনৈতিক লাভ হবে না । দিন দিন দলের নেতিবাচক রাজনৈতিক ভূমিকায় সি পি এম আরো জনভিত্তি হারাবে । ‘ বি জে পি , দুর্বৃত্ত তৈরীর কারখানা বানিয়েছে মজলিশপুর - মানিক ’ , শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদ সম্পর্কে এলাকার বিধায়ক তথা তথ্য সংস্কৃতি মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরীর দৃষ্টি আকর্ষন হলে তিনি বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার এবং সি পি এম সম্পর্কে এভাবে তার প্রতিক্রিয়া ব্যাক্ত করেন । তিনি বলেন , মশলিপুর ছিল আতষ্কের ও সন্ত্রাসের আতুরঘর । দিন দুপুরে খুন হওয়া রবি - লিটন দেববর্মার বিচার হয়নি , খুন হয়েছে সাংবাদিক শান্তনু ভৌমিক , ২০০৩ সনের মান্দাই চৌমুহনীর ১১ জন গনহত্যার বিচার হয়নি । মন্ত্রী সুশান্ত চৌধুরী বলেন , সম্পূর্ন জনভিত্তি হারিয়ে সি পি এম নেতৃত্ব দিশাহারা হয়ে পড়েছে।চরম হতাশায় ভোগছেন, কেননা ২৫ বছর সি পি এমের শাসনে রাজ্যের শিক্ষিত বেকার যুবক থেকে শুরু করে শিক্ষক কর্মচারীকে সঙ্গে নানা ভাবে প্রতারনার করা হয়েছে । দুর্নীতিতে আপাদমস্তক ডুবে যায় সি পি এম নেতা মন্ত্রীরা । খুন সন্ত্রাস ছিল প্রতিদিনের নিত্য ঘটনা ।কোন ঘটনারই বিচার পায়নি মানুষ। তাই একপ্রকার আস্থা হারিয়েই পরিবর্তনের পথে হাটতে বাধ্য হয় মানুষ। তাছাড়া এদিন শ্রী চৌধুরী বলেন , বামফ্রন্ট আমলে রাজ্যে গনতন্ত্র বলে কিছুই ছিল না । ছিল দলতন্ত্র । রাজ্যবাসীর মৌলিক অধিকার পর্যন্ত ছিল না সি পি এম রাজত্বে । সি পি এমের মিছিলে না হাটলে , সি পি এম নেতাদের বাড়ি বাড়ী হাজিরা না দিলে রেগার কাজ পর্যন্ত পেতেন না মানুষ । সি পি এম নেতা - কর্মী না হলে প্রধানমন্ত্রী আবাস যোজনায় ঘর পর্যন্ত পেতেন না সাধারন গরীব মানুষ । বি জে পি রাজ্যে ক্ষমতায় আসার পর গনতন্ত্র প্রতিষ্ঠিত হয়েছেন । দলমতের বিচার না করে সবাইকে ঘর প্রদান করা হচ্ছে । মুখ্যমন্ত্রীর ঐকান্তিক প্রচেষ্টায় ইতিমধ্যে একদিনে প্রধামন্ত্রীর হাত ধরে প্রায় দেড়লক্ষ পরিবারকে পাকা ঘরের জন্য ব্যাংকে প্রথম কিস্তির টাকা প্রদান করা হয়েছে । শ্রী চৌধুরী জানান , রাজ্যে ২০১৮ সালে বি জে পি ক্ষমতায় আসার পর প্রায় দু’বছর কোভিড মহামারী সত্ত্বেও সর্বস্তরে উন্নয়নের কর্মসূচী চলছে ।পরিকাঠামোর উন্নয়ন হচ্ছে । শিক্ষা স্বাস্থ্য , পানীয়জল সহ সর্বক্ষেত্রে উন্নয়নে কাজ তরান্বিত হয়েছে । ২০১৮ সালেও যারা সি পি এমের মিছিলে হাটতে তারা রাজ্যে বি জে পি ক্ষমতায় আসার পর জনকল্যানে রাজ্যে সরকারের গৃহীত একের পর এক ইতিবাচক সিদ্ধান্ত দেখে দলে দলে সি পিএম ছেড়ে বি জে পিতে যোগ দিচ্ছেন । এতে চরম হতাশায় ভোগছেন । বিরোধী দলনেতা মানিক সরকার সহ সি পিএম নেতৃত্ব বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।



Contact Us
Phone: +91-8794840801/7005571681
Email: janadarpannews@gmail.com

© Copyright, 2021-22 janadarpan.com. All Rights Reserved. Developed and Maintained by Chevichef Private Limited.

Images published in the Image Gallery are subjected to Copyright of the photographer under The Copyright Act, 1957 of the Republic of India. Any unauthorized use of any image is prohibited.